News

Biman News

জাতীয় পতাকাবাহী সংস্থা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হতে যাচ্ছে বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযুক্তি সম্বলতি সর্ম্পূণ নতুন ৩য় বোয়িং ৭৮৭ ড্রীমলাইনার উড়োজাহাজ । ২৫ জুলাই ২০১৯  বৃহস্পতিবার বিকেলে হযরত শাহজালাল আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দরে ৩য় ড্রীমলাইনার অবতরন করবে। এ উড়োজাহাজ যুক্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে বিমান বহরে উড়োজাহাজের সংখ্যা দাঁড়াবে ১৫টি। দেশে পৌঁছার পর ড্রীমলাইনারকে ওয়াটার ক্যানন স্যালুটের মাধ্যমে স্বাগত জানানো হবে। বিমানটি দেশে আনতে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি প্রতিনিধি দল সিয়াটলে বোয়িং কোম্পানীর এভারটে ডেলিভারী ও অপারেশন্স সেন্টারে গমন করছেনে।

 

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ২০০৮ সালে মার্কিন উড়োজাহাজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িং কোম্পানির সঙ্গে ১০টি নতুন বিমান ক্রয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয় ।  ইতোমধ্যে চারটি নতুন বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর, দুটি নতুন বোয়িং ৭৩৭-৮০০ ও দুটি বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রীমলাইনার উড়োজাহাজ বিমান বহরে যুক্ত হয়ছে। ৩য় টি আগামীকাল দেশে আসছে । সর্বশেষ ১টি ড্রীমলাইনার আশা করা যাচ্ছে বিমান বহরে যুক্ত হবে আগামী সেপ্টেম্বর, ২০১৯-এ।

 

বিমান  বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হতে যাওয়া চারটি ড্রীমলাইনার নাম বাছাই করেছেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এগুলো হলো আকাশবীণা, হংসবলাকা, গাঙচিল ও রাজহংস। ২৫ জুলাই, ২০১৯ বিমান বহরে যুক্ত হতে যাওয়া ড্রীমলাইনারটি হলো গাঙচিল।

 

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ৭ আগস্ট ২০১৯, ৩য় ড্রীমলাইনারটি উদ্বোধন করার কথা।

 

গাঙচিল-এ আসন সংখ্যা থাকছে ২৭১টি এর মধ্যে বিজনেস ক্লাস ২৪টি আর ২৪৭ টি ইকোনমি ক্লাস। বিজনেস ক্লাসে ২৪টি আসন ১৮০ ডিগ্রি পর্যন্ত রিক্লাইন্ড সুবিধা এবং সর্ম্পূণ ফ্ল্যাটবেড হওয়ায় যাত্রীরা আরমদায়কভাবে স্বাচ্ছন্দ্যর সাথে ভ্রমণ করতে পারবেন।  বিমানটিতে যাত্রীরা অন্যান্য আধুনিক সুবিধা, ইন্টারনেট ও ফোন কল করার সুবিধাও পাবেন।