News

Biman News

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের লন্ডন-ঢাকা রুটের বিজি-০০২ ফ্লাইটের একজন পার্সার মোহাম্মদ আশরাফ আল কাদের হ্যাপী একজন যাত্রীর হারিয়ে যাওয়া ৩২৮৫ পাউন্ড পেয়ে পরবর্তীতে তা টাকার মালিক লন্ডন প্রবাসী শামীম আহমেদ চৌধুরীকে ফেরত দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।

মূলতঃ ঘটনাটি ঘটে গত ১৪ ডিসেম্বর ২০১৬।ঐ দিন ফ্লাইটটি লন্ডন থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে উড্ডয়নের প্রস্তুতিকালে ফ্লাইটের একজন যাত্রী কেবিন ক্রু হ্যাপীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে সিঠ পকেটে পড়ে থাকা একটি পলিথিন প্যাকেট ফেলে দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেন।প্যাকেটটি যাত্রীসাধারণের সামনে দিয়ে নেওয়া শোভন হবে না বিধায় তার নিজের ইউনিফর্মের পকেটে ঢুকিয়ে নেয় পড়ে ফেলে দিবেন ভেবে। প্রকারান্তরে তিনে তা করতে ভুলে যান। ফ্লাইটটি সিলেট হয়ে ঢাকায় আসে । তিনি যথারীতি বাসায় যান । বাসায় গিয়ে তিনি দেখতে পান প্যাকেটটিতে রয়েরছ ৩ হাজার ২শ ৮৫ পাউন্ড এবং একটি কাগজে লন্ডনের একটি ফোন নম্বর।

হ্যাপী ঐ নম্বরে ফোন করে যাচাই করে নিশ্চিত হন টাকার মালিক লন্ডন প্রবাসী শামীম আহমেদ চৌধুরী । তিনি ২৯ ডিসেম্বর ঢাকায় আসেন এবং মোহাম্মদপুরে হ্যাপীর বাসায় যান । জনাব শামীম বলেন,‘আমি অভিভূত ,আমার কাছে স্বপ্নের মতো লাগছে’। তিনি আরও বলেন,দেশে এখনো অনেক ভাল মানুষ আছেন, অনেক উন্নত দেশেও এত টাকা ফেরত পাওয়া কঠিন।তিনি এই টাকা ফেরত পাওয়ার আশাই ছেড়ে দিয়েছিলেন।তিনি বলেন,এই দৃষ্টান্তে তিনি তাঁর দেশ নিয়ে এবং জাতীয় এয়ারলাইন্স নিয়ে গর্ববোধ করছেন।

হ্যাপী প্রয়াত কাজী নূরুল কাদের ও রাশেদা কাদেরের ছেলে। বরেণ্য সাংবাদিক এবিএম মূসার ভাগ্নে। হ্যাপী বলেন, এটি তার নৈতিক দায়িক্ত। এই দায়িক্ত পালন করে তিনি স্বস্তি বোধ করছেন।

এই ঘটনায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ গর্বিত। কর্তৃপক্ষ মনে করে এ ঘটনায় দেশের মানুষের প্রতি প্রবাসীদের আস্থা,বিশ্বাস দৃঢ় হবে। একইভাবে বাংলাদেশ বিমানের কর্মরতদের প্রতি শ্রদ্ধা ও বিশ্বাসযোগ্যতা বৃদ্ধি পাবে।

বিমান ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও মহোদয় বিমান প্রধান কার্যালয় বলাকা’য় বিমানকর্মীর এ সততার স্বীকৃতিস্বরূপ তাঁকে একটি প্রশংসাপত্র প্রদান করেছেন।